Space For Advertise
Space For Advertise

সর্বশেষ

যশোর, সোমবার, ০১-সেপ্টেম্বর-২০১৪ || ১৭-ভাদ্র-১৪২১

শীর্ষ সংবাদ - প্রথম পাতা

নড়াইলে ২০ দলীয় জোটের প্রতিনিধি সভায় সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলাম: জিয়াউর রহমান দেশের ক্রান্তিকালে ডাক না দিলে দেশে স্বাধীনতার সূচনা হতো না

01-09-2014 | নড়াইল অফিস

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলাম বলেছেন, গণবিচ্ছিন্ন, ফ্যাসিস্ট আওয়ামীলীগ হত্যা-গুম ও নির্যাতনের মাধ্যমে মতায় টিকে থাকতে চায়। যে কারণে তাদের দলীয় ক্যাডাররা সরকারের পেটুয়া বাহিনীর সাথে এক হয়ে বিরোধীদলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের বাড়ি গিয়ে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করে চলেছে। বুলডোজার দিয়ে তাদের বাড়িঘর গুড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। আওয়ামীলীগ মনে করে তারা রোজকিয়ামত পর্যন্ত মতায় থাকবে। তিনি আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, স্বৈরশাসন ও বাকশালী কায়েম করে মতায় থাকার অপচেষ্টা করবেন না। পৃথিবীর এমন কোথাও নজির নেই যে সেখানে স্বৈরশাসক বেশিদিন মতায় থাকতে পেরেছে। পাতানো প্রহসনের ভোটারবিহীন নির্বাচিত শেখ হাসিনার সরকার রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেছে। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান দেশের ক্রান্তিকালে যদি ডাক না দিতেন তাহলে এদেশে স্বাধীনতার সূচনা হতো না। তিনি বলেন, স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে মতালিপ্সু শেখ হাসিনা যে ভাষা ব্যবহার করেন, কাজের বুয়াও সে ধরনের ভাষা ব্যবহার করেন না। তিনি স্বৈরাচারী, ফ্যাসিস্ট ও গণবিচ্ছিন্ন আওয়ামীলীগ সরকারকে হঠাতে ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করার জন্য আহবান জানান।
গতকাল রোববার বিকেলে নড়াইলের রূপগঞ্জে একটি কমিউনিটি সেন্টারে ২০ দলীয় জোটের প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তরিকুল ইসলাম একথা বলেন।
প্রধান অতিথি আরও বলেন, বিনাভোটে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের কাছে বিচারপতিদের অভিশংসনের ঘটনা একটি লজ্জাজনক অধ্যায়। গত ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে শতকরা ৯৫ ভাগ মানুষ এ সরকারকে ঘৃণাভারে প্রত্যাখান করেছে। এ সরকারকে আর নির্বাচিত সরকার বলার কোন সুযোগ নেই। এদেশের জনগণ আওয়ামীলীগকে আর মতায় দেখতে চায় না। ‘প্রশাসনযন্ত্র’ দিয়ে মতা টিকিয়ে রেখেছে বর্তমান সরকার। মতায় টিকে থাকতে তারা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে ইচ্ছেমত ব্যবহার করছে। তিনি বলেন, এ সরকারের আমলে সারাদেশে বিএনপির শত শত নেতাকর্মীকে খুন করা হয়েছে। বর্তমান সরকার সম্পূর্ণ অবৈধ। অচিরেই দেশপ্রেমিক জনগণের তীব্র আন্দোলনের মুখে এ সরকারের পতন নিশ্চিত হবে।
নড়াইল জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল কাদের শিকদারের পরিচালনায় জেলা বিএনপির সভাপতি বিশ্বাস জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে প্রতিনিধি সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন  বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান, জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা আজীজুর রহমান ও নড়াইল জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ জুলফিকার আলী মন্ডল। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন সিকদার, যশোর জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক অ্যাড. সাবেরুল হক সাবু, নড়াইল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, জামায়াতের জেলা সেক্রেটারি মোহাম্মদ আলমগীর হোসাইন, জেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি ও লোহাগড়া পৌরসভার মেয়র অ্যাড. নেওয়াজ আহম্মেদ ঠাকুর নজরুল, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের জেলা সভাপতি অ্যাড. গোলাম মোহাম্মদ, নড়াইল পৌর বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, সাধারন সম্পাদক রেজাউল খবির রেজা, লোহাগড়া থানা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামান, জামায়াত নেতা মোহাম্মদ ওবায়দুলাহ কায়সার, বিএনপি নেতা শ, ম ওয়াহিদুজ্জামান মিলু, মাহবুব মোর্শেদ জাপল, যুবদলের জেলা সভাপতি মোহাম্মদ মশিয়ার রহমান, ছাত্রদলের জেলা সভাপতি শাহরিয়ার রিজভী জর্জ ও জামায়াত নেতা ইব্রাহীম খলিল। প্রতিনিধি সভায় যশোর জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সকল সংবাদ - প্রথম পাতা

Space For Advertise
Space For Advertise
Space For Advertise
Space For Advertise
Space For Advertise
Space For Advertise